সোমবার, ১১ই জুন, ২০১৮

যে দিনটির কথা ভুলে থাকতে চায় রিদাদ

নিউজ টাইম কলকাতা ডট কম
নভেম্বর ২, ২০১৫
news-image

রিদাদ ফারহান সকাল ১০ টায় জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে প্রথম সারিতে বসেন। জেএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র ছিল আজিমপুরের নতুন পল্টন উচ্চ বিদ্যালয়ে। ওই স্কুলের প্রিন্সিপাল এসএম কানিজ ফাতিমা এ তথ্য জানান।

প্রিন্সিপাল কানিজ জানান, শিক্ষকরা রিদাদের সঙ্গে এমন আচরণ করার চেষ্টা করেছেন যে কোন কিছুই হয়নি। সব কিছুই স্বাভাবিক আছে। কিভাবে উত্তরপত্র তৈরি করতে হয় ক্লাসের মধ্যে অন্য কেউ জানতেন না। সকলের মধ্যে রিদাদই এ বিষয়টি জানতেন।  পরীক্ষা শেষে রিদাদ আমার কক্ষে প্রবেশ করে। জিজ্ঞাসা করে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলবে কিনা। আর কিভাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে হয়। এর আগে কোনো সাংবাদিকের সঙ্গে কথা বলেনি ছোট কিশোর রিদাদ।

প্রিন্সিপাল কানিজ আরো জানান, এই দিনটি সত্যিই তার জন্য কঠিন ছিল। প্রায় আধা ঘন্টা ধরে অপেক্ষা করেছিল রিদাদ সেই সময় পর্যন্ত স্কুলের শিক্ষকরা তাকে নিরাপত্তা দিয়েছে। বাইরে একটি গাড়ি তাকে এসে নিয়ে সরাসরি বাবার শেষকৃত্যে অংশগ্রহণ করতে নিয়ে যায়। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে রিদাদের জন্য অতিরিক্ত নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে। তার সব পরীক্ষায় নিরপত্তা দেওয়া হবে। প্রথম পরীক্ষা থেকেই তা শুরু হয়েছে।

জানাযা শেষে রিদাদের বাবা জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক দীপনকে আজিমপুরে দাফন করা হয়। দাফন শেষে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তার দাদা অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক সাংবাদিকদের অনুরোধ করেন তাকে প্রশ্ন করা থেকে বিরত থাকার জন্য। এছাড়া দীপনের পরিবারের গোপনীয়তা রক্ষা করতে পরিবারের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের অনুরোধ করা হয়।

কিশোর রিদাদ ফারহান পরীক্ষা দিতে যেতে চাইছিল না। কিন্তু শিক্ষা এ পরিবারের সবচেয়ে বড় সম্পদ বলেই হয়ত বুকে পাথর বেঁধে সকালে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত হতে হয় রিদাদকে। সকালে মা রিদাদকে স্কুলের ড্রেস পরিয়ে দেন। যখন ছেলেটি জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা দিতে গেল, তখন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের মর্গে শুয়ে ওর বাবা ফয়সল আরেফিন দীপন। পরীক্ষা শেষে রোববার দুপুর ১টার দিকে রিদাদকে  নিয়ে আসা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে। সেখানেই প্রাণাধিক প্রিয় বাবার জানাজায় অংশ নেয় নিহত দীপনের একমাত্র ছেলে রিদাদ।

রিদাদ উপস্থিত সবার কাছে বাবার জন্য দোয়া চেয়ে বলেন, ‘তার বাবা জান্নাতবাসী হবেন’। এর আগে রাতে বাসায় শোকের মধ্যেই রিদাদকে নিজের পরীক্ষার পস্তুতি নিতে হয়েছে। রিদাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোডের উদয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী ।

সূত্র: ডেইলি স্টার, জনকন্ঠ ও সমকাল