বুধবার, ১৩ই জুলাই, ২০১৬

অসমে অগপকে দলে টানতে উদ্যোগ কংগ্রেসের

নিউজ টাইম কলকাতা ডট কম
ডিসেম্বর ২০, ২০১৫
news-image

গুয়াহাটি: ক্ষমতা ধরে রাখতে অসম কংগ্রেসের ভরসা কিশোর-কুমার। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার আর বিহার দখলের কাণ্ডারী প্রশান্ত কিশোরের উদ্যোগে ‘চিরশত্রু’ অসম গণ পরিষদকে জোটে টানতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে কংগ্রেস।

রাজনীতিতে  বরাবরের শত্রু কংগ্রেস ও অগপ একজোট হওয়ার চেষ্টায় অনেকেই অবাক। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, রাজ্যে কোণঠাসা হয়ে পড়া অগপর কাছে লড়াইতে টিকতে হলে সর্বভারতীয় দলের হাত ধরা জরুরি।

রাজ্যে কংগ্রেস বিরোধী জোট গড়তে তৎপর বিজেপিও প্রাক্তন জোট-শরিক অগপকে দলে চেয়েছিল। কিন্তু আসন সমঝোতায় মতের মিল হয়নি। সুযোগ বুঝে অগপকে দলে টানতে উদ্যোগী এআইসিসি। সেখানে দৌত্যের ভার নেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক প্রশান্ত কিশোর।

ইতিমধ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে দুই দফায় বৈঠকে বসে অগপ। ছিলেন দলের সভাপতি প্রফুল্ল মহন্ত ও কার্যবাহী সভাপতি অতুল বরা। বৈঠকে জেঠমালানি ও নীতীশের সঙ্গে ছিলেন কিশোর। জোট গড়লে আসন সমঝোতা কী হবে ও জোটের প্রভাব জনমনে কেমন পড়বে— তা নিয়ে কথা হয়।

২০০৬-এ ২৪টি আসন পাওয়া অগপ গত ভোটে মাত্র ১০টি আসন পায়। সর্বানন্দ সোনোয়াল, চন্দ্রমোহন পাটোয়ারি, হিতেন গোস্বামী, জয়নাথ শর্মা, নবকুমার দোলের মতো নেতারা দল ছেড়ে কংগ্রেস বা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এখন দলের অবস্থা নড়বড়ে। বাম ও আঞ্চলিক দলের সঙ্গে জোটে ভোট লড়ার পরিকল্পনা করে তারা। বিপিএফ ইতিমধ্যেই বিজেপির সঙ্গে কথা এগিয়েছে। বাম দলগুলির হাতে কোনও বিধায়ক নেই, নেই জনভিত্তিও। আসন সমঝোতা করতে হলে কংগ্রেস ভিন্ন অগপর সামনে রাস্তা খোলা নেই।

অগপ নয়, কিশোর ও কুমারের উদ্যোগে কংগ্রেস এআইইউডিএফের সঙ্গেও কথা চালাচ্ছে। ধর্মনিরপেক্ষ মহাজোটে অসমের অন্য দলগুলিকেও আহ্বান জানান অসমের মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ। দিল্লিতে কথা চলছে। সে ক্ষেত্রে, প্রাক নির্বাচনী মিত্রতা না হলেও ভোটের পরে তারা হাত মেলাতেই পারে। বিপিএফ জানায়, ভোটে যারা বেশি আসন পাবে, বিপিএফ তাদেরই সমর্থন জানাবে। তাই একলা লড়তে চলা বিজেপিকে টক্কর দিতে আপাতত নির্বাচনের আগে-পরে ‘ধর্মনিরপেক্ষ মহাজোট’-এর পতাকার নীচে ঘর খানিকটা গুছিয়ে নিয়েছে কংগ্রেস।