সোমবার, ১১ই জুন, ২০১৮

ট্রেনে গৃহবধূর ‘শ্লীলতাহানি’, রেল পুলিশের অসহযোগিতা

নিউজ টাইম কলকাতা ডট কম
ডিসেম্বর ২০, ২০১৫
news-image

তমলুক: ভেলোর থেকে ফেরার পথে চলন্ত ট্রেনে তমলুকের গৃহবধূর শ্লীলতাহানির অভিযোগ। রেলের তরফে সহযোগিতা মেলেনি, দাবি অভিযোগকারিণীর। খড়গপুর ডিআরএমের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের।
রেলের সংরক্ষিত কামরায় মদ্যপানের প্রতিবাদ করায় রোগিণীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ! ভেলোর থেকে ফেরার পথে ভয়াবহ অভিজ্ঞতার সাক্ষী তমলুকের এই গৃহবধূ!

অস্ত্রোপচার করাতে ভেলোর গিয়েছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন স্বামী ও দুই শিশু। গত ১৮ ডিসেম্বর কাটপট্টি স্টেশন থেকে চেন্নাই-হাওড়া যশবন্তপুর এক্সপ্রেসে ওঠে এই পরিবার। অভিযোগ, তাদের উল্টো দিকের বার্থে সেইসময় এক তরুণ ও তরুণী মদ্যপান করছিল। গৃহবধূ প্রতিবাদ করলে বচসা হয়।

তখনকার মতো বিষয়টি মিটে গেলেও, মাঝরাতে ওই মত্ত তরুণ গৃহবধূর শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। তিনি বলেন, মাঝরাতে শুয়েছিলাম। ছেলেটি শ্লীলতাহানি করে। চিৎকার শুনে পালিয়ে গেল। ধাওয়া করলাম শৌচাগার পর্যন্ত। পাওয়া যায়নি। ফিরে এসে দেখে হাতব্যাগ নেই। বালা, সোনার হার, ১৬ হাজার টাকা খোয়া যায়।

অভিযোগকারিণীর দাবি, মেচেদার স্টেশন ম্যানেজারের দফতরে আগাম ফোন করে বিষয়টি জানানো হলেও, কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

তাঁর অভিযোগ, মেচেদায় নামার আগে স্টেশন ম্যানেজারের দফতরে ফোন। মেচেদায় আরপিএফ আসে। বলল মহিলা পুলিশ নেই, তরুণীকে আটক করতে পারব না। ট্রেন চলে গেল।

শনিবার সন্ধেয় খড়গপুরের ডিআরএমের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে পরিবারটি। যদিও ট্রেনে খোয়া যাওয়া হাতব্যাগ এখনও ফেরত পাননি এই অসুস্থ গৃহবধূ। খোঁজ নেই অভিযুক্তরও।