বুধবার, ১৩ই জুলাই, ২০১৬

রাজ্যে আজ শুরু মাধ্যমিক: টোকাটুকি ঠেকাতে সতর্কতা

নিউজ টাইম কলকাতা ডট কম
ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৬
news-image

আজ সোমবার শুরু হল এ বছরের মাধ্যমিক পরীক্ষা৷ বিধানসভা ভোটের জন্য নির্ধারিত সময়ের তুলনায় বেশ খানিকটা এগোনো হয়েছে মাধ্যমিক৷ গত কয়েক বছরে অবাধ টোকাটুকির মতো ঘটনা ঠেকাতে এ বার কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে৷ মোবাইল ফোন, ক্যালকুলেটরের মতো যন্ত্র নিয়ে পরীক্ষার্থীরা তো হলে ঢুকতে পারবেনই না , এমনকি কোনও পর্যবেক্ষক , শিক্ষক , শিক্ষাকর্মীরাও পরীক্ষা চলাকালীন মোবাইল ব্যবহার করতে পারবেন না৷ অফিসার ইনচার্জ ও সেন্টার সচিবকেও পরীক্ষার কাগজপত্র বাছাইয়ের সময় ব্যাগ এবং মোবাইল জমা রাখতে হবে৷ পরীক্ষা কেন্দ্রের ভিতরে কোনও অভিভাবককেও ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে পর্ষদের তরফে জানানো হয়েছে৷ঘটনা হল , জয়েন্ট এন্ট্রাস পরীক্ষার জন্য জয়েন্ট বোর্ড নানা রকম কড়া পদক্ষেপ করেছে৷ পরীক্ষাকেন্দ্রে যাতে মোবাইল বা ইন্টারনেট ব্যবহার করা না -যায় , তার জন্য জ্যামার বসিয়েছে তারা৷ কিন্ত্ত তার পরেও টোকাটুকি পুরোপুরি ঠেকানো যায়নি৷ অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন , মাধ্যমিকের ক্ষেত্রেও এমন বজ্র আঁটুনি ফস্কা গেরো হবে না তো ? পর্ষদের আশা , তেমন কিছু হবে না৷ হলে পুলিশ -প্রশাসন অবশ্যই ব্যবস্থা নেবে৷ শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় রবিবার এক অনুষ্ঠানের ফাঁকে বলেন , ‘আমি সব পরীক্ষার্থীকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি৷

সকলে যেন নিয়ম মেনে পরীক্ষা দেয়৷ সুষ্ঠু ভাবে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য প্রশাসনও সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছে৷ আমি এবং আমার গোটা দপ্তর পাশে আছি৷ ‘ পর্ষদ প্রশাসক কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ের বক্তব্য , ‘বাইরে থেকে টুকলি সরবরাহ রোধ করতে পরীক্ষা কেন্দ্রের মধ্যে কেউ থাকতে পারবে না৷ এ জন্য প্রশাসন যাবতীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে৷ ‘ঠিক হয়েছে , পরীক্ষা কেন্দ্রে নজরদারির কাজে ব্যস্ত ইনভিজিলেটররা গল্পগুজব করতে পারবেন না৷ খবরের কাগজও পড়তে পারবেন না৷ প্রশ্ন-সহ পরীক্ষা সংক্রান্ত কনফিডেন্সিয়াল কাগজপত্র বাছাইয়ের সময় কাস্টডিয়ান , অফিসার ইনচার্জ এবং সেন্টার সেক্রেটারি ছাড়া আর কেউ থাকবে না৷ পরীক্ষা সংক্রান্ত গোপন কাগজ একবার খোলা হলে পরীক্ষা শেষ না -হওয়া পর্যন্ত ওই কেন্দ্র থেকে কেউ বাইরে বেরতে পারবে না৷ দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত ছাড়া অন্য কোনও শিক্ষক -শিক্ষিকা ছুটিও নিতে পারবেন না৷ এ বছর ভিজিটিং টিমের গতিবিধিও কড়া হাতে নিয়ন্ত্রণের নির্দেশিকা জারি করেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ৷ সেই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে , মেন ভেন্যুর অধীনে অনেকগুলি পরীক্ষা কেন্দ্র থাকে৷ ভিজিটিং কমিটির কাজ হবে সেগুলি দেখভাল করা বা নজর রাখা৷ কিন্ত্ত ওই কমিটির সদস্যরা পরীক্ষা চলাকালীন হলে অযথা ঢুকতে পারবেন না৷

বড়জোর পরীক্ষা কেন্দ্রের আশপাশে বহিরাগতদের জমায়েত ও কোনও অনিয়ম হচ্ছে কি না , তা দেখে প্রশাসনকে সময়মতো অবহিত করতে পারবেন৷ এ বার মোট পরীক্ষার্থী ১১ ,৫৩ ,৪৩২ জন৷ তার মধ্যে ছাত্রী ৬,৩১ ,১২২ জন৷ ছাত্র ৫ ,২২,৩১০ জন৷ সেই সঙ্গে গতবারের তুলনায় এ বছর পরীক্ষার্থীও বেড়েছে ১ ,১৭ ,৫০২ জন৷ সাম্প্রতিক অতীতে এক বছরে এত পড়ুয়া বৃদ্ধির নজিরও নেই৷ আজ থেকে পরীক্ষা শুরু হয়ে চলবে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত৷ সকাল ১১টা ৪৫ মিনিটে পরীক্ষার্থীরা প্রশ্নপত্র হাতে পেয়ে যাবে৷ প্রথম পনেরো মিনিট সময় থাকছে শুধু প্রশ্ন পড়ার জন্য৷ বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে উত্তরপত্র হাতে পাবেন পড়ুয়ারা৷ পরীক্ষার সময় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুত্ সরবরাহের ব্যাপারে প্রতিশ্রীতি দিয়েছে সিইএসসি৷ অতিরিক্ত সরকারি ও বেসরকারি বাস চালানোর কথা জানানো হয়েছে পরিবহণ দন্তরের তরফে৷ একই সঙ্গে শিয়ালদহ স্টেশনে সব শাখায় অতিরিক্ত ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক রবি মহাপাত্র বলেন , ‘অতিরিক্ত ট্রেন ছাড়াও মাধ্যমিকের জন্য অতিরিক্ত জায়গায় ট্রেন দাঁড়াবে৷ ‘

কোনও সমস্যা হলে ➠ মাধ্যমিক পরীক্ষা সংক্রান্ত কোনও সমস্যা হলে সকাল ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত কন্ট্রোল রুম খোলা থাকবে ➠ পরীক্ষার্থী , অভিভাবক এবং স্কুল কর্তৃপক্ষ প্রশাসনিক প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট টেলিফোন নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন ➠ কন্ট্রোল রুম ০৩৩ ২৩৫৯২২৭৭ /৭৮ ➠ প্রশাসক – ০৩৩ ২৩২১৩০৮৯ ও ৯০৫১৪১৪১১১ ➠ উপসচিব (পরীক্ষা ) ০৩৩ ২৩২১৩৮৪৪ /২৩২১৩২১৬ এবং ৯৮৩৬৪৫২৪৩৪ ➠ উপসচিব (সাধারণ ) ৯৮৩০৬৪১৪১১ ➠ সহকারী সচিব (কনফিডেন্সিয়াল ) ৯৭৪৮১০২২১৪৷